আয়োজিত হয়ে গেলো সফটওয়্যার টেস্টিং বিষয়ক সেমিনার “Software Testing as Career Path”

Published by DIU CPC on

১ আগস্ট,২০১৮তারিখে ড্যাফোডিল ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটির কম্পিউটার প্রোগ্রামিং ক্লাব (সিপিসি) “ Software Testing as a Career Path” শিরোনামে সেমিনার আয়োজন করে।

সেমিনারটিতে বিখ্যাত সফটওয়্যার কোম্পানি CodeMarshal এর লিড সফটওয়্যার টেস্টিং ইঞ্জিনিয়ার তাসিন নেওয়াজ দ্বারা পরিচালিত হয়।

এই সেমিনারটিতে তাসিন নেওয়াজ, Quality Assurance(QA) কী? সফটওয়্যার টেস্টিং কী? কেন আপনি  QA ইঞ্জিনিয়ার হবেন? QA ইঞ্জিনিয়ার হতে কি কি দক্ষতার প্রয়োজন? চাকরি ক্ষেত্রে QA ইঞ্জিনিয়ারের চাহিদা কেমন? ইত্যাদি বিষয় নিয়ে আলোচনা করেন।

তার বক্তব্য থেকে Software Quality Assurance সম্পর্কে জানা যায়। কেন একটি সফটওয়্যার  এর কোয়ালিটি যাচাই করা প্রয়োজন হয়? যখন একটি সফটওয়্যার তৈরি করা হয় অবশ্যই বাজারে সেটির প্রতিদ্বন্দ্বী থাকবে। এখন কিভাবে প্রমাণ করবেন আপনার সফটওয়্যারটি অন্য সফটওয়্যার থেকে ভালো সেবা প্রদান করবে? বা আপনি আপনার সফটওয়্যার দিয়ে যে সেবা প্রদান করতে চাচ্ছেন তা আপনার তৈরি করা সফটওয়্যার দ্বারা প্রদান করা সম্ভব হবে কি না? এই বিষয়গুলো সঠিকভাবে জানার জন্য কোয়ালিটি যাচাই করা প্রয়োজন। আপনি যদি সফটওয়্যার তৈরির পর কোয়ালিটি যাচাই না করেই সেটিকে বাজারে ছাড়েন এবং সেটি যদি আপনার লক্ষ্য পূর্ণ না করে তাহলে আপনি অনেক বড় ক্ষতির সম্মুখীন হতে পারেন।

সফটওয়্যার টেস্টিং এবং কোয়ালিটি এস্যুরেন্স এর মধ্যে ভিন্নতা আছে। সফটওয়্যার টেস্টিং হচ্ছে, একটি সফটওয়্যারের কোন ত্রুটি আছে কি না সেটি খুজে বের করা বা সফটওয়্যারটিতে কী কী ত্রুটি হতে পারে তা নির্ধারণ করা। কোয়ালিটি এস্যুরেন্স হচ্ছে, যখন কোন সফটওয়্যার তৈরি করা হয় অবশ্যই একটি প্রক্রিয়া অনুসরণ করে চলে। সেই প্রক্রিয়ার প্রতিটি ধাপের শেষে সেটাকে যাচাই করা। যার ফলে কোনো ধাপে ত্রুটি থাকলেও সেটাকে ততক্ষনাৎ খুজে পাওয়া সম্ভব হয় এবং সমাধান করাও সহজ হয়। যদি পুরো সফটওয়্যার তৈরির পর তার কোয়ালিটি যাচাই করা হয় তবে ত্রুটি খুজে পেতে এবং তার সমাধান করাও কঠিন হয়ে পরে। যেহেতু প্রত্যেকটি ধাপই কোয়ালিটি যাচাই  করা হয় সেহেতু সফটওয়্যার টেস্টিংকে কোয়ালিটি এস্যুরেন্স এর একটা অংশ বলতে পারি।

কেন আপনি একজন  Quality Assurance ইঞ্জিয়ার বা Software Tester হবেন?

QA ইঞ্জিনিয়ার বা সফটওয়্যার টেস্টার মানেই, কোনো সফটওয়্যারের কোয়ালিটি যাচাই করা বা সফটওয়্যারটির কোন ত্রুটি আছে কি না তা খুজে বের করা। এই প্রক্রিয়াটি আপনাকে সফটওয়্যার সম্পর্কে দক্ষ করে তুলবে। প্রতিটি সফটওয়্যার কিন্তু একই প্রক্রিয়া মেনে নাও চলতে পারে বা একই কম্পিউটার ল্যাংগুয়েজ ব্যবহার নাও করতে পারে। সে ক্ষেত্রে আপনার নতুন কম্পিউটার ল্যাংগুয়েজ শিখতে হবে। আপনি যদি খুব ভালো প্রোগ্রামার না হন তবুও একসময় দেখবেন এই সফটওয়্যার টেস্টিং এর মাধ্যমেই আপনি অন্যান্য প্রোগ্রামারদের মতো দক্ষতা অর্জন করে ফেলেছেন অনেকটাই।

নতুন হিসেবে কিভাবে শুরু করবো এই বিষয়ে তাসিন নেওয়াজ বলেন, আপনি যতটুকুই পারেন সেটুকু দিয়েই একটা সফটওয়্যার টেস্ট করা শুরু করুন। যদি কোন সফটওয়্যার না পেয়ে থাকেন। তাহলে নিজের কোন ধারনা থেকেই একটি কোড লেখা শুরু করেন এবং সেটাকেই টেস্ট করুন। আপনিই সবই করলেন কিন্তু টেস্ট করলেন না তাহলে সফটওয়্যার বাজারে ছাড়ার পর তা কোনো কাজে আসবে না।

সফটওয়্যার টেস্টার হিসেবে যে দক্ষতাগুলো প্রয়োজনঃ

  1. Passion
  2. Good Technological Knowledge
  3. Analytical Thinking Skill
  4. Deep Knowledge in Software Testing
  5. Knowledge on some programming language (ex. Python, Ruby etc.)

চাকরি ক্ষেত্রে একজন  QA ইঞ্জিনিয়ারের প্রচুর চাহিদা।

যেকোনো আইটি কোম্পানির এখন QA ইঞ্জিনিয়ার প্রয়োজন হয়। সেই ক্ষেত্রে টেস্টার হিসেবে চাকরির শুরুতে একজন ডেভেলপার এর থেকে আপনার বেতন কম হলেও আপনি যখন দক্ষ হয়ে যাবেন তখন আপনার আয় ডেভলপারের চেয়েও বেশী হতে পারে। আর আপনার ক্যারিয়ারও এগোতে থাকবে সামনের দিকে। দক্ষ হয়ে গেলে তখন আপনি সফটওয়্যার টেস্টার থেকে টেস্ট ম্যনেজার, প্রোজেক্ট ম্যনেজার, SQA ম্যনেজার,বিজনেস এনালিস্ট হয়ে যেতে পারেন।

এসব ছাড়াও কিভাবে সফটওয়্যার টেস্টার হওয়া যায় সে সম্পর্কে বিস্তারিত আলোচনা করা হয় সেমিনারে।

সম্পুর্ন সেমিনারটি DIU CPC পেইজ থেকে লাইভ সম্প্রচার করা হয়।
লাইভটি দেখতেঃ https://www.facebook.com/diucpc.official/videos/2051316761848938/

Author: Sadia Afrin Suma
Batch 47, CSE DIU


0 Comments

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *